ভোলায় ১৮০জন বিএনপি আ.লীগে যোগদান, বিএনপি সমাবেশে মরিচের গুড়া মেরে বন্ধ করত : তোফায়েল আহমেদ

0
352

আল-আমিন এম তাওহীদ, ভোলার আলো.কম,

ভোলায় নৌকার পথসভায় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন সভা-সমাবেশ করতে দেয়নি। মরিচের গুড়া মেরে সমাবেশ বন্ধ করে দিয়েছিল। কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকারের ১০বছরে দেশে কোন অত্যাচার নির্যাতন হয়নি। আমি কখনো কাউকে অত্যাচার করিনি, তারপরও আমাকে খুনের আসামি করেছে বিএনপি। খালেদা জিয়া ২বার ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় আমাকে ৩বার জেলে নিয়েছে। কাশেমপুর, কুষ্টিয়া, রাজশাহী কারাগারে রাখে।

ভোলা পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ড কর্তৃক আয়োজিত নৌকার পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব মন্তব্য করেন। পৌর-মেয়র মনিরুজ্জামান মনিরের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মমিন টুলু, জেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মঈনুল হোসেন বিপ্লব, পৌর প্যানেল মেয়র শাহে আলম, পৌর আ.লীগের সভাপতি নাজিবুল্লাহ নাজু, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান, মহিলালীগের সাফিয়া খাতুন, জান্নাতুল ফেরদাউস জুবলী, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহীম চৌধুরী পাপন, মহিলা যুবলীগের খাদিজা আক্তার স্বপ্না, রেহানা ফেরদাউস, নাজনীন আক্তার রুমাসহ কাউন্সিলবৃন্দ প্রমূখ।

এসময় মন্ত্রী আরো বলেন, ভোলার উন্নয়ন আজ দৃশ্যমান। স্কুল,কলেজের শিক্ষার্থীরা বলছে উন্নয়ন হয়েছে। ভোলা সরকারি কলেজের ভবন নির্মানসহ অসংখ্য উন্নয়ন করেছি। ভোলা পৌরসভা এখন দেশের মধ্যে একটি আধুনিক পৌরসভা। ভোলার মানুষ এখন সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করছে। হাসপাতাল নির্মাণ,মসজিদ,মাদ্রাসা,স্কুল, এতিমখানা,বৃদ্ধ নিবাস, রোড-ঘাট, বিদ্যুৎ, নদীভাঙ্গন থেকে ভোলাকে রক্ষা করা হয়েছে। মানুষ এখন জুতা পায় দিয়ে চলাফেরা করছে। একসময়ে মানুষ খালি পায়ে হেটেঁছিল, রাস্তাঘাট উন্নয়ন হয়নি। গ্রামগুলো এখন শহরে পরিনত হয়েছে। সামনে ভোলা-বরিশাল ব্রিজ নির্মাণ হলে মুল ভু-খন্ডের সাথে সংযুক্ত হবে ভোলা। আমি তোফায়েল বেচেঁ থাকলে আর ভোলার মানুষ আগামি নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করালে ভোলা-বরিশাল ব্রিজ নির্মাণ করে দিবো। এই ব্রিজ আমি তোফায়েল ছাড়া কেউ নির্মাণ করতে পারবেনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরিশাল সমাবেশে ব্রিজ নির্মাণ করে দেয়ার ঘোষনা দিয়েছেন। বাংলাদেশ আজ একটি উন্নয়নশীল দেশে পরিনত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে ক্ষুধামুক্ত,দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তুলতে দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

বিশেষ অতিথি হিসেব পৌর-মেয়র মনির বলেন, ভোলা পৌরসভা প্রিয় নেতা তোফায়েল আহমেদের চেষ্টায় আজ দেশের মধ্যে একটি সর্বশ্রেষ্ঠ পৌরসভা হিসেবে গড়ে তুলেছি। পৌরসভার নাগরিক সেবা থেকে শুরু করে সকল ধরনের সেবা দিনরাত ২৪ঘন্টা দেয়া হচ্ছে। কারণ মানুষ যেন সেবা থেকে বঞ্চিত না হয়। পৌরসভার উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত আছে এবং থাকবে। আগামি ৩০ডিসেম্বর নৌকা প্রতিকে ভোট তোফায়েল আহমেদকে জয়লাভ করিয়ে ভোলার মানুষের পাশে দাড়াঁনো এবং উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখতে হবে।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন পৌর আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী নেয়াজ পলাশ।

পরে বাণিজ্যমন্ত্রীর হাতে হাত রেখে পৌরসভার ১৮০জন বিএনপির নেতাকর্মীরা আওয়ামী লীগে যোগদান করেন।

(এইচআর, ১২ডিসেম্বর-২০১৮ইং)

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here