বরিশালে সাংবাদিককে প্রকাশ্যে পেটালো আ’লীগ নেতা!

0
11

ডেস্ক: ভোলার আলো.কম,

বরিশালের উজিরপুরে এক আওয়ামী লীগ নেতা ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে স্থানীয় একজন সাংবাদিককে প্রকাশ্যে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে গুরুত্বর আহত হয়ে ওই সাংবাদিক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। মঙ্গলবার (৮ ডিসেম্বর) দুপুর পৌনে ২টার দিকে উপজেলা পরিষদের নবনির্মিত ভবন সংলগ্ন ভূমি অফিসের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সংবাদকর্মীরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে হামলকারীকে দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন। মারধরের শিকার সংবাদকর্মী হলেন- স্থানীয় দৈনিক বরিশাল প্রতিদিন পত্রিকার উজিরপুর উপজেলা প্রতিনিধি ও উজিরপুর প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সরদার সোহেল।

তাঁর ও প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ গুঠিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা আওয়ামী লীগ নেতা মো. আতাহার আলী খান ও তার কয়েকজন সহযোগী মিলে প্রকাশ্যে এ হামলা চালিয়েছে।

আহত সংবাদকর্মী সোহেল অভিযোগ করে বরিশালটাইমসকে বলেন- উপজেলার গুঠিয়া ইউনিয়নের চাঙ্গুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটি গঠন নিয়ে সম্প্রতি চলমান সমস্যার বিষয়ে প্রতিবেদন তৈরি করতে সংবাদকর্মী সোহেল গত কয়েকদিন আগে ওই বিদ্যালয়ে গিয়েছিলেন। সেই থেকেই তার (সংবাদকর্মী) ওপর ওই বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির নেপথ্যে থাকা স্থানীয় আ’লীগ নেতা আতাহার খান ক্ষিপ্ত ছিলেন। এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিস ভবনের সামনে আওয়ামী লীগ নেতা আতাহার খান সংবাদকর্মী সোহেলের পথরোধ করেন। পরে তিনি বলেন, “ওই বিদ্যালয়ে কার অনুমতি নিয়ে গিয়েছিলে”। এ নিয়ে কথা-কাটাকাটি হলে আ’লীগ নেতা আতাহার আলী খান ও তার সহযোগীরা প্রকাশ্যে সংবাদকর্মী সোহেলকে পিটিয়ে আহত করে।

সংবাদকর্মী সোহেল আরও বলেন- এ ঘটনায় অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। তবে উজিরপুর থানা পুলিশ এখনও পর্যন্ত নীরব ভুমিকায় রয়েছেন। সাংবাদিকের ওপর হামলাকারী অভিযুক্ত উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. আতাহার আলী খানের সাথে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এদিকে হামলাকারী ওই আওয়ামী লীগ নেতার খোঁজ-খবর নিয়ে জানা গেছে- তিনি বিগত দিনে ছিলেন বিএনপির প্রভাবশালী নেতা। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা সরদার সরফুদ্দিন আহম্মেদ সান্টুর ঘনিষ্ঠ সহচরও ছিলেন। কয়েক বছর পূর্বে তিনি বিএনপি ছেড়ে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন।’

এই ঘটনায় আহত সাংবাদিকের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

উজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিশির কুমার পাল জানিয়েছেন- রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত কেউ লিখিত বা মৌখিক অবহিত করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

(এইচআর, ৮জানু-২০১৯ইং)

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here