চাকরি পাবে ফায়ারম্যান সোহেলের পরিবার

0
20

ডেস্ক: ভোলার আলো.কম,

ঢাকার বনানীতে আগুনের ঘটনায় উদ্ধারকাজে অংশ নিয়ে আহত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাওয়া ফায়ার সার্ভিসকর্মী সোহেল রানার পরিবারের কাউকে চাকরি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। বলেন, ‘পরিবারের একমাত্র একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ছিলেন সোহেল। তার পরিবারে উপযুক্ত কেউ থাকলে তাকে চাকরি দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদর দপ্তরে সোহেল রানার প্রথম জানাজা শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

২৮ মার্চ বনানীর এফআর টাওয়ারের ভয়াবহ আগুনের ঘটনায় ২৬জন নিহত হন। অগ্নিকাণ্ডের উদ্ধার অভিযানে গুরুতর আহত হন ফায়াম্যান সোহেল রানা। পরে তাকে সিঙ্গাপুরে পাঠানো হয়। সেখানে একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সোমবার ভোরে তার মৃত্যু হয়। এদিন রাতেই সিঙ্গাপুর এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে তার মৃতদেহ দেশে আনা হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ফায়ারম্যান সোহেল পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি ছিলেন। ফায়ার সার্ভিসসহ আমরা সবাই তার পরিবারের প্রতি লক্ষ রাখব। এছাড়া পরিবারে যদি উপযুক্ত কেউ থাকে তাহলে একটি চাকরির ব্যবস্থা করা হবে।’

সোহেল রানার পরিবার ক্ষতিপূরণ পাবে কিনা জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘ক্ষতিপূরণ নয়, আমরা তার পরিবারকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করব। ইতোমধ্যে ফায়ার সার্ভিস তাকে সহযোগিতা করেছে, প্রধানমন্ত্রীও সহযোগিতা করবেন। ভবিষ্যতে আপনারা তা দেখতে পারবেন।’

সোহেলের সাহসিকতা নিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘সোহেল মানুষকে ভালোবাসতেন, দেশকে ভালোবাসতেন- এর প্রমাণ তিনি রেখে গেছেন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এফআর টাওয়ারে উদ্ধার করতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন। তার মৃত্যুতে গোটা জাতি শোকাহত। তার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা।’

‘আমরা সরকারের পক্ষ থেকে তাকে সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেয়ার চেষ্টা করেছি। প্রথমে তাকে সিএমএইচে নেয়া হয়েছে, এর পর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হয়।’

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে মুন্সীগঞ্জের কমলাঘাট নদী ফায়ার স্টেশনে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে কর্মজীবন শুরু করেন সোহেল রানা। এর কয়েক মাস পরেই বদলি হন ঢাকার কুর্মিটোলা ফায়ার স্টেশনে।’

(এইচআর, ৯এপ্রিল-২০১৯ইং)

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here